কিভাবে Blog এর Post গুলি দ্রুত সার্চ ইঞ্জিনে Index করতে হয়


আপনার ব্লগে খুব বেশী ট্রাফিক পাওয়ার জন্য আপনাকে সর্বপ্রথম যে বিষয়টি করতে হবে তা হচ্ছে Fresh, Unique এবং ভাল Quality এর কনটেন্ট লিখতে হবে। যদি এই Fresh, Unique এবং ভাল Quality এর কনটেন্ট লিখেন তাহলে Google Search Engine তাড়াতাড়ি আপনার ব্লগের পোষ্ট গুলি Index করে নেবে। আর আপনার পোষ্টের কনটেন্ট যদি হয় Useless তাহলে সার্চ ইঞ্জিন পোষ্টের কনটেন্ট গুলি Index করবে না। আপনার ব্লগ পোষ্টের কনটেন্ট লিখার সময় যদি কনটেন্ট এর গুনগত মান এর প্রতি লক্ষ্য না রেখে পোষ্ট করেন, তাহলে এমনও হতে পারে গুগল আপনার পোষ্টটি ০৬ মাসের মধ্যেও Index করবে না। আর পোষ্ট Index না হওয়ার মানে হচ্ছে আপনার ব্লগের ভিজিটর কমে যাওয়া। তাই পোষ্ট Index হওয়ার জন্য প্রথম শর্ত হচ্ছে কোন প্রকার কপি করা কনটেন্ট ছাড়া ভাল মানের আর্টিকেল লিখা। এছাড়াও ব্লগ পোষ্ট-কে তাড়াতাড়ি Index করার জন্য নিম্নে আরও কিছু বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো, যে গুলি আপনার ব্লগ পোষ্টকে সার্চ ইঞ্জিনে তাড়াতাড়ি Index হতে সাহায্য করবে। নিচের চিত্রে দেখুন আমার আজকের এই পোষ্টটি মাত্র ৫ মিনিটেই সার্চ রেজাল্টে আনতে সক্ষম হয়েছি।
কিভাবে Blog এর Post গুলি দ্রুত সার্চ ইঞ্জিনে Index করতে হয়
যে ভাবে ব্লগ পোষ্ট দ্রুত Index করবেনঃ
  • ভাল মানের কনটেন্টঃ আমি আগেই বেশ কয়েকবার বলেছি পোষ্ট দ্রুত Index হওয়ার পূর্বশর্ত হচ্ছে ভাল মানের আর্টিকেল লিখা। আপনি যখন কনটেন্ট লিখবেন তখন এই বিষয়টি খেয়াল রাখবেন যে, আপনার কনটেন্ট শুধুমাত্র সার্চ ইঞ্জিনে Index হওয়ার জন্য নয়, বরংচ কনটেন্ট হচ্ছে পাঠকদের জন্য। অনেক লোক আছে যারা শুধু Keyword Research করে আর্টিকেল পোষ্ট করে। তারা ভাবে যে, Keyword Research করে আর্টিকেল পোষ্ট করলে বেশী ভিজিটির আসবে এবং সার্চ ইঞ্জিনে ভাল র‌্যাংকিং পাবে। আসলে এটা একটা ভূল সিদ্ধান্ত। আপনাকে মনে রাখতে হবে আপনার ব্লগিং করার উদ্দেশ্য শুধুমাত্র ট্রাফিক বৃদ্ধি করা নয়। আপনার উদ্দেশ্য হচ্ছে ব্লগে সবসময় সর্বস্তরের পাঠকদের ধরে রাখা। যাতেকরে ভিজিটররা বার বার আপনার ব্লগ পড়ার জন্য ভিজিট করে।
  • সাইটম্যাপ সাবমিটঃ সাইটম্যাপ হচ্ছে আপনার ওয়েবসাইটের সারসংক্ষেপ। এর মাধ্যমে সার্চ ইঞ্জিন আপনার সাইটের সকল পোষ্টগুলি সংক্ষেপে পড়ে নিতে পারে। সুতরাং সাইটম্যাপ আপনার ব্লগ/ওয়েবসাইটের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। আপনার ব্লগ পোষ্ট তাড়াতাড়ি সার্চ ইঞ্জিনে Index হওয়ার জন্য অবশ্যয় Google, Yahoo এবং Bing ওয়েবমাষ্টারে টুলে সাবমিট করে রাখবেন। Google Webmaster Tool এ Url Fetch করার মাধ্যমে খুবই দ্রুত আপনার পোষ্ট সার্চ ইঞ্জিনে Index করতে পারেন। উপরের চিত্রে দেখুন Url Fetch করে আমি মাত্র ০৫ মিনিটেই একটি পোষ্ট Index করতে সক্ষম হয়েছি।
  • ব্যাক লিংকঃ ভাল ওয়েবসাইট হতে ব্যাক লিংক এর মাধ্যমে আপনার ব্লগের ট্রাফিক বাড়িয়ে নেওয়ার সহজ উপায় হচ্ছে এটি। যেমন-আপনার ব্লগের বিষয়ের সাথে Related এমন কিছু ভালমানের ওয়েবসাইটে কমেন্ট করে ব্যাক লিংক তৈরী করে নিতে পারেন। এর ফলে ঐ লিংক এর মাধ্যমে কাঙ্খিত ওয়েবসাইট হতে আপনার ব্লগে ভিজিটর পাওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। এ ছাড়া আরও কিছু উপায়ে আপনি ব্যাক লিংক বাড়াতে পারেন -  গ্যাষ্ট ব্লগিং, Internal Link তৈরী করে, বিভিন্ন Forum এ জয়েন করে, Submit RSS feed to RSS directories এবং ভাল মানের কনটেন্ট লিখে, যে কনটেন্ট এর ভাল মান দেখে অন্য কেউ আপনার পোষ্টটি শেয়ার করতে চাইবে।
  • Social নেটওয়ার্কিংঃ সম্প্রতি সময়ের জন্য Social নেটওয়ার্কিং হচ্ছে সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশনের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। যে কোন পোষ্ট করার পরে আপনার পোষ্টটি বিভিন্ন Social নেটওয়ার্ক এর কমিউনিটি পেজ কিংবা গ্রুপে শেয়ার করতে পারেন। এর ফলে আপনার পোষ্টটি অনেক ভিজিটরের কাছে সহজেই পৌছে যাবে এবং ভিজিটররাও বুঝবে যে, এটি একটি নূতন পোষ্ট। তাছাড়া সামাজিক যোগাযোগের কিছু সাইট যেমন- Google+, Facebook এবং Twitter ছাড়া আরও বেশ কিছু সাইট রয়েছে যে গুলি Google সবসময় Index করে। এগুলিতে শেয়ার করার মাধ্যমে Google Search Engine সহজে আপনার লিংকটি পেয়ে যাওয়ার সম্ভবনা থাকে।
  • সাইট Pinging: পিং সাধারনত ব্যাবহার করা হয় স্পাইডার/ক্রলার/ইন্ডেক্সার কে সতর্ক করার জন্য এবং যখন কোন পেইজ আপডেট হয় বা যদি নতুন কোন পোষ্ট করা হয় তা যেন গুগল দ্রুত ইন্ডেক্স করতে পারে সেই জন্য। এক কথায় বলা যায় Ping ব্যাবহার করা হয় যাতে নতুন পোষ্ট করা ব্যাকলিঙ্ক গুলো গুগল তাড়াতাড়ি ইন্ডেক্স করতে পারে। ইন্টারনেটে অনেক ফ্রি Pinging ওয়েবসাইট রয়েছে যে গুলি আপনি ইচ্ছা করলে খুব সহজে ব্যবহার করতে পারেন। ফ্রি Pinging ওয়েবসাইটের মধ্যে জনপ্রিয় একটি সাইট হচ্ছে Ping-O-Matic. আপনি এই সাইটটি অনায়াসে ব্যবহার করতে পারেন।